হোস্টেল (১)

একটা মেয়ে রুমে এসে বলল, রুমে নতুন মাইয়া কেডা? নিচে মকতার ভাইরে টাকা না দিয়া দাঁড় করায় রাখছে?

হোস্টেল (৫)

গোসলের সময় আসত সবাই জামা-কাপড় সব খুলে শুধু গামছা বা তোয়ালে জড়িয়ে বাথরুমে ঢুকত। গোসল করে বেরও হত ওই গামছা পরে।

হোস্টেল (২)

স্যার যাওয়ার পর শিমলা আমার এক পাশের চুলের বেণি ধরে বলল, কোনো দরকার নাই তোর স্যারের কাছে যাওয়ার। আমি দরকার হইলে তোর বাসায় গিয়ে বুঝায় দিয়া আসবো।

রকি রোড সানডে (২)

বুড়িরে বললাম, আমার তো নাইমে যাইতে হবে। আপনার গল্পটা তো শুনা হইলো না।

হোস্টেল (৬)

রিমন তাও দাঁড়িয়ে আছে। চশমা খুলে আমাকে বলল, “চল না একটু ছাদে যাই। বাসায় বলবা যে লিফট বন্ধ, তাই একটু লেট হল।

নারগিস (৮)

নারগিস বলল, ভালো তো ছিলাম।... এসে শুনি তুই একলা ঘরে ছেলেদের গায়ে মাথা ঘুরে পড়ে যাস, এসে দেখি তুই ঘুমের মধ্যে গান গাস, ঘটনা কী?

হোস্টেল (৮)

লিমন ভাইয়ার ক্যাঁ করে ওঠাটা খুবই আনস্মার্ট ছিল। আমার কানে ক্যাচ ক্যাচ করে লাগল। মানুষ তো স্মার্টলিও উহ্‌ আহ্‌ করতে পারে!

লৌহিত্যের ধারে (৮)

কিছু রাস্তার নিজস্ব চরিত্রও থাকে। একেকটা রাস্তার একেকটা ইমেজ মাথায় স্থায়ী হইয়া যায়।

রকি রোড সানডে (১১)

আমি ঘুমাইলেই অনেকগুলি বাচ্চা মানুষ স্বপ্ন দেখি। সবগুলি বাচ্চাই আমি। সেই বাচ্চা আমিগুলি আবার আমারে খুন করতেছেন বিভিন্ন ভাবে।

নারগিস (৩)

আন্টি বলল, দেখ প্রেম করো, যাই করো, তোমার আব্বার বয়সী লোকের সাথে রেস্টুরেন্টে যাওয়ার আগে একটু ভাইবো।

রকি রোড সানডে (১)

ছেলেটা আমার গোল গোল চশমার দিকে ইঙ্গিত কইরা কইলেন, তোমার চশমাটা খুব সুন্দর।

হোস্টেল (১১)

আপু হঠাৎ করে বললেন, “জানিস এই ছেলেটাকে ডাম্প করে আমি তোর ভাইয়ার সাথে প্রেম শুরু করি।..."