খইট্টাল (৫)

বাপে মনে অয় জানতো না কালিকাবুরির দাদি কত গরিব।

লৌহিত্যের ধারে (৫)

প্রথম যখন নুডলস রান্ধা হইছে বাসায়, আমার দাদি জোবেদা খাতুন কইছিলেন, “এইগুলা হালালই না হারামই।”

লৌহিত্যের ধারে (৪)

ব্রহ্মপুত্র নদের সঙ্গে একটা রক্তাক্ত ইতিহাস জড়াইয়া আছে।

হসপিটাল (১)

আমার মনে হইলো, আশেপাশের সবাই আমার কথা শুনতেছে। শুনুক।

রকি রোড সানডে (১০)

সেইদিন পতেঙ্গার ছাই রঙা পানি আর ততধিক ছাই রঙা সূর্য দেইখা মনে হইছিল আমি শুধু দেশ ঘুইরা জীবন কাটায়া দিতে পারবো।

হোস্টেল (৯)

আপুকে হঠাৎ চেন্জ চেন্জ লাগছে। ভাইয়ার দাঁতমুখ খিচিয়ে কথা বলা আর আপির হাসি হাসি মুখের কারণ দুইটা মিলাতে পারছি না।

রকি রোড সানডে (৯)

"আজকে দিন ভালা না। আইজকে প্রেতের বাইর হওনের দিন।"

নারগিস (৫)

অনেক কিছু আলোচনা হয় সেখানে। সবচেয়ে বেশি সেক্স। আর ছেলেদের নিয়ে আলোচনা।

লৌহিত্যের ধারে (৩)

অবশ্য লোহিত মানে লাল, লৌহিত্য কি লোহিত থাইকা আসছে কিনা কে জানে!

লৌহিত্যের ধারে (২)

মাইয়া মাইনষের বাপের বাড়ি থাকে কিংবা শ্বশুরবাড়ি, নিজের বাড়ি থাকে না।

লৌহিত্যের ধারে (১)

বহুদিন নিজের বাড়িতে থাকবার পর মমেনসিং শহরে ভাড়া বাড়িতে উঠতে কেমন জানি আজব অনুভূতি হইতেছিল। নিজেরে আগন্তুক মনে হইতে থাকল।

রকি রোড সানডে (৮)

এরপর উনি লিভিং রুমে গিয়া আমার বাপ এবং মা’রে কইলেন আমি ড্রাগ অ্যাডিক্ট হইয়া পাগল হইয়া গেছি। আমার ঘরে সিরিন্জ এবং রাবার ব্যান্ড পাওয়া গেছে। খাটের তলা সার্চ করলে ড্রাগও পাওয়া যাইতে পারে।